আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান কি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় করতে পারবে ?

পাকিস্তান জাতীয় দলের ইংল্যান্ড সফর অনেকটা আকস্মিক ছিল। ইংল্যান্ডের শ্রীলংকা সফর শেষে দেশে ফিরার পর যখন তাদের দল ও ম্যানেজমেন্টের ১৫ সদস্য করোনা আক্রান্ত হিসেবে ঘোষনা করে, তখন থেকে শুরু করে টি টুয়েন্টি সিরিজের ২য় ম্যাচ পর্যন্ত পাকিস্তান টিমের আন প্রেডিক্টিভিলিটি সরাসরি ম্যাচের এক্সাইট্মেন্টে প্রভাব ফেলেছে। একারনেই ওয়ান ডে সিরিজ ইংল্যান্ডের অনভিজ্ঞ দলের সাথে খেলার পরও ৩-০ তে হোয়াইট ওয়াশে হেরেছিল পাকিস্তান।

ওয়ান ডে সিরিজ শেষে ইংল্যান্ডের পুর্ণ শক্তির দলকে টি টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেই বাজিমাত করে দেখিয়েছিল পাকিস্তান। টসে হেরে ব্যাটিং এ নেমে পুরোটা সময়ই ডমিনেশন দেখিয়েছে বাবর আযমের দল পাকিস্তান। পাকিস্তানের ইতিহাসের রেকর্ড স্কোরের ম্যাচটিতে দলকে দলীয় সর্বোচ্চ ৮৫ রান এনে দেয় রেঙ্কিং এর ২য় অবস্থানে থাকা অধিনায়ক বাবর আজম।

রান তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড শুরুটা ভালো করলেও দ্রুত উইকেট হারাতে থাকে মরগানরা। দলের পক্ষে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ছক্কা চারের বৃষ্টি বর্ষণ করা লিয়াম লিভিংস্টোন ব্যাক্তিগত সর্বোচ্চ ১০৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন। তার ইনিংসের পুরোটা সময় বাউন্ডারি থেকে বল এনে বার বার তা স্যানিটারাইজ করছিল আম্পায়াররা। ম্যাচ সেরা শাহীন শাহ আফরীদী নিয়েছিল গুরুত্বপূর্ণ ৩ উইকেট।

কিন্তু পাকিস্তানের আনপ্রেডিক্টিবিলিটির মুহূর্ত আসে ২য় টি টুয়েন্টি ম্যাচে যখন তারা ইংল্যান্ডের শক্তিশালী একাদশের কাছে ৪৫ রানে হেরে যায়। ম্যাচের শুরুতে পাকিস্তানের বোলাররা বেশ গুরুত্বপুর্ন কিছু উইকেট পেলেও বাটলার এবং মঈন আলীর ঝড়ো রান ইংল্যান্ডকে ২০০ রানে অল আউট হওয়া থেকে বাচাতে পারে নি।

২০১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের মিডল অর্ডার ও লেট অর্ডার ব্যর্থ হয়। ইনিংস শেষে পাকিস্তানের স্কোর ছিল ১৫৫/৯  ।

আজ সিরিজের ৩য় টি টুয়েন্টি খেলতে রাত ১১টা ৩০ মিনিটে মাঠে নামবে উভয় দল। মাঠের পারফোরমেন্সে ইংল্যান্ড এগিয়ে থাকলেও আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান সিরিজ জয়ে আশাবাদী। উভয় দলের সাম্প্রতিক পারফোরমেন্স আমাদের বলে দিচ্ছে শেষ ম্যাচে উভয় দলই কাউকে ছাড় দিয়ে খেলবে না ।

কি ওয়ার্ডঃ পাকিস্তান বনাম ইংল্যান্ড, pakistan vs england , pakistan tour of england

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন