ফিফা ফুটবলে নতুন পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই খবরে বেশ ক্রুদ্ধ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানের ফুটবল প্রেমিরা। টুইটার
, ইনস্টাগ্রাম সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফুটবল প্রেমিরা তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তবে চলুন দেখে আসি কি কি নিয়ম রয়েছে এই নতুন পদ্ধতিতে-

  • খেলার ২ অর্ধের সময়কাল হবে ৩০ মিনিট করে। (অর্থাৎ এখন যেখানে ৪৫ মিনিট করে দুইয়ার্ধে মোট ৯০ মিনিটের খেলা হয় সেখানে নতুন এই পদ্ধতিতে মোট খেলা হবে সর্বসাকুল্য ৬০ মিনিট)
  • বল মাঠের সীমার বাইরে গেলে ঘড়ি বন্ধ হবে। (বর্তমানে বল মাঠের সীমার বাইরে গেলেও ঘড়ি বন্ধ করা হয় না)
  • সীমাহীন খেলোয়ার বদলি। (ফুটবলের নিয়মানুযায়ী প্রতি ম্যাচে সর্বাধিক ৫ জন খেলোয়ারকে বদলি করা যাবে। যা কোভিট-১৯ পরস্থিতির জন্য শিথিল করা হলেও নতুন পদ্ধতিতে এর বাধ্যবাধকতা থাকছে না। আর্থাৎ একটি দল যত খুশি খেলোয়ার বদলি করতে পারবে)
  • পায়ের সাহায্যে থ্রো-ইন। (একসাথে দুই হাত দিয়ে থ্রো-ইন করার নিয়ম থাকলেও নতুন পদ্ধতিতে পায়ের সাহায্যে কিক করেও থ্রো-ইন করা যাবে)
  • হলুদ কার্ড পেলেই ৫ মিনিট বরখাস্ত। (বর্তমান নিয়মানুযায়ী শুধুমাত্র রেড কার্ড পেলে কমপক্ষে ১ ম্যাচ বরখাস্ত করা হয়)

বর্তমানে এই নতুন পদ্ধতি “ফিউচার অফ ফুটবল” নামক ফিফার বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতায় পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

ফুটবলপ্রেমিদের মতে ফুটবলে এই নতুন পদ্ধতি চালু  করা হলে তা ফুটবলের সৌন্দর্য্যহানি ঘটাবে এবং এর ফলে দর্শকরা ফুটবল বিমুখ হয়ে পড়বে।

এর আগে দ্য সুপার লিগ কমিটির প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ এবং রিয়াল মাদ্রিদের বর্তমান প্রেসিডেন্ট  ফুটবলে নতুনত্ব আনার জন্য সময় কমানোর আভাস দিয়েছিলেন।

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন