আবারও বায়ার্নের কাছে হারলো বার্সেলোনা। নিজেদের মাঠে ৩-0 গোলের পরাজয়।

বার্সেলোনা

ইউসিএল এর প্রথম ম্যাচডে তে বায়ার্ন মিউনিখের এর মুখোমুখি বার্সেলোনা। দুই দলের শেষ দেখা হয়েছিল ২০১৯-২০ ইউসিএল এর কোয়ার্টার ফাইনালে। শেষ দেখায় বায়ার্নের কাছে ৮-২ গোলে হেরেছিল বার্সেলোনা। ইউসিএল ২০২১-২২ এর নিজেদের প্রথম ম্যাচে বার্সার মাঠে মুখোমুখি দুই দল।
উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের এওয়ে ম্যাচে গত ১৮ ম্যাচ ধরে অপরাজিত বায়ার্ন যা এখন পর্যন্ত ইউসিএলের সর্বোচ্চ। অন্যদিকে ১৯৯৭-৯৮ ইউসিএলের পর থেকে এখন পর্যন্ত কোন উদ্বোধনী ইউসিএল ম্যাচে হারেনি বার্সেলোনা।

ম্যাচের প্রথম থেকেই ছিল দর্শকদের মধ্যে টানটান উত্তেজনা। মেসি বিহীন এইবার বায়ার্ন কে মোকাবেলা করা বার্সার জন্য কঠিন পরিক্ষা। ম্যাচ শুরু হওয়ার পর থেকেই খুব স্বাচ্ছন্দে খেলতে থকে উভয় দল। ম্যাচ শুরুর মাত্র ৫ মিনিটের মাথায় হলুদ কার্ড পায় জোশুয়া কিমিচ। ১৯ মিনিটে সানে এর জোরালো শট ফিরিয়ে দেয় টার স্টেগান।
২০ মিনিটে সানের পাসে ২০ গজ দূর থেকে শট নেয় মুলার। গারসিয়ার গায়ে লেগে বল দিক পরিবর্তন করে যার ফলে বিভ্রান্ত হয়ে যায় গোলকিপার টার স্টেগান। গোললাইন পার করে জালে গিয়ে জড়ায় বল। প্রথম গোলের দেখা পায় বায়ার্ন।
বার্সেলোনা
১-০ গোল ব্যবধানে প্রথমার্ধ শেষ করতে হয় বুস্কেট বাহিনীকে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই গোল সমতা করতে মরিয়া হয়ে উঠে বার্সা। কিন্তু কোন শটই পোস্ট বরাবর নিতে পারেনি তারা। অন্যদিকে ৫৬ মিনিটে মাসিয়ালার শট বার্সার পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ফিরে আশা বল সাথে সাথেই পরবর্তী শট নিয়ে গোল আনেন লেওয়ানডোস্কি। ২-০ গোলের লিড নেয় বায়ার্ন মিউনিখ।

বার্সেলোনা

দ্বিতীয় গোলের পর তরুণ খেলোয়াড় নামায় বার্সা।  কিন্তু কোন গোল পেতে ব্যর্থ হয় কাতালিয়ানরা। ৮৫ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে দেয় লেওয়ানডোস্কি। ডি বক্সের ভিতর পিকেকে কাটিয়ে বাম পায়ের শট জালে পাঠায় লেওয়া। খেলায় ফিরে আশার শেষ আশাটুকু হারায় বার্সা।

বার্সেলোনা

নিজেদের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে ৩-০ গোলে হেরে বিদায় নিতে হয় বার্সেলোনার। সাথে নিজেদের টানা ২৪ ইউসিএল উদ্বোধনী ম্যাচে না হারার রেকর্ডও হারায় তারা। আগামি ডিসেম্বর ৯ তারিখে বায়ার্ন এর মাঠে পুনরায় মুখোমুখি হবে বার্সেলোনা এবং বায়ার্ন মিউনিখ।

 

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন