টোকিও অলিম্পিক মিস করবে যেসকল মহারথীদের

সীমিত আয়োজনে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হাতেগোনা ৯৫০ জনের উপস্থিতিতে টোকিও অলিম্পিকের এর পর্দা উঠছে আজ।টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশের পতাকা বহন করবেন সাঁতারু আরিফুল ইসলাম।

জাপানের টোকিওতে স্থানীয় সময় রাত আটটা এবং বাংলাদেশ সময় বিকাল পাঁচটায় শুরু হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। দেখা যাবে সনি টেন টু চ্যানেলে।বাংলাদেশের বিটিভিতে দেখা যাবে এই অনুষ্ঠান।


“গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ” খ্যাত অলিম্পিক বিশ্বমঞ্চে শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের লড়াই।বিশ্বের সর্ব বৃহৎ এই ক্রীড়াযজ্ঞে সারা পৃথিবীর অ্যাথলেটদের মিলনমেলা দেখতে পায় বিশ্ববাসী।

২০১৬ সালের রিও অলিম্পিক বিদায় দিয়েছিল সর্বকালের সবচেয়ে সফল আর সর্বাধিক পদকজয়ী অলিম্পিয়ান মাইকেল ফেলপস এবং সর্বকালের সেরা দ্রুততম মানব উসাইন বোল্টকে।যারা শুধু মহাতারকাই নন হয়ে উঠেছিলেন বিশ্বের সর্ববৃহৎ এই ক্রীড়াযজ্ঞের সমার্থক নাম।যতবারই অলিম্পিক আসবে ততবারই এই দুই মহারথীকে মিস করবে পুরো বিশ্ব।

এবারের আসরে বিশ্ব দেখবে না এমন সব অলিম্পিক গ্রেটদের। যাদের না থাকা অলিম্পিকের জন্য একপ্রকার শূন্যতা। করোনা ভাইরাস, ইনজুরি, কোয়ালিফাইসহ বিভিন্ন কারণে অনেক তারকাদের পাচ্ছে না অলিম্পিক।

এবারের অলিম্পিকে তারকাশূণ্য হয়ে থাকবে টেনিস। নাম প্রত্যাহার করেছেন চার অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী যুক্তরাষ্ট্রের সেরেনা উইলিয়ামস। খেলছেন না দুই স্বর্ণজয়ী স্পেনের রাফায়েল নাদালও নাম প্রত্যাহার করেছেন বিয়ানকা আন্দ্রেসকো, জোহানা কন্তা, ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কা, অ্যাঞ্জেলিক কেরবার ও নিক কিরগিওসের মতো তারকারা।

ইনজুরির কারণে অংশ নিচ্ছেন না রজার ফেদেরার হাটুর ইনজুরিতে ভুগছেন এ সুইস তারকা। এছাড়াও খেলতে পারছেন না ডমিনিক থিম, সিমোনা হালেপ, স্ট্যান ওয়ারিঙ্কা ও মনিকা পুইগ। এছাড়া অ্যাথলেটিক্সে মো. ফারাহ, জাস্টিন গ্যাটলিনদের ছাড়াই হচ্ছে এবারের আসর।
ভারতের অভিনব বিন্দ্রা ২০০৮ আসরে শ্যুটিংয়ে স্বর্ণ জিতে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন। রিওতে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে চতুর্থ হয়ে বিদায় বলে দেয়া এ শ্যুটারকেও মিস করবে টোকিও অলিম্পিক।

টোকিও পাচ্ছেনা বেশ কয়েকজন ফুটবল তারকাকেও। এর মধ্যে আছেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার, মিসরের মোহাম্মদ সালাহ, ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পে।

ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে কোয়ালিফাই করতে পারেননি ৪ অলিম্পিকজয়ী বৃটিশ অ্যাথেলেট মো. ফারাহ।

এমনিতেই করোনার থাবা সাথে এত তারকাদের অনুপস্থিতিতে অলিম্পিক কিছুটা রঙ হারাবে বলে মনে করেন অলিম্পিক প্রেমীরা।

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন