“সুযোগ দেওয়ার আগে আমাদের ব্যর্থ বললে গতি বাড়াতে পারব না, ব্যর্থ হলেও আমাকে পাবেন ভবিষ্যতে” – ইভ্যালির সিইও

দেশের অন্যতম শীর্ষ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি নিজেদের সবচেয়ে কঠিন সময়টিই পার করছে। ইভ্যালির সিইও’র ফেসবুক বিবৃতিতেও এই বিষয়টি ফুটে উঠেছে।তবে এত কিছুর মধ্যেও শুভ সময়ের আশাবাদ নিয়ে গ্রাহকদের সহযোগিতা চান তিনি।

আরো পড়ুনঃ “বেঁচে থাকলে ২০২৫ সালের মধ্যে ইভ্যালি হবে দেশের সবচেয়ে বড় ইন্ডাস্ট্রি।”- লাইভে ইভ্যালির সিইও।

২০১৮ সালে যাত্রা শুরু করে ইভ্যালি। শুরুর পর থেকেই গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে দেওয়া হয় একের পর এক আকর্ষণীয় অফার। ইভ্যালির এমন অবিশ্বাস্য অফার নিয়ে শুরুতে ব্যাপক সমালোচনা হয়। সমালোচনা থাকলেও গ্রাহকরা সেই অবিশ্বাস্য অফারে ঝুঁকে পড়ে। তড়িৎ গতিতে বাড়তে থাকে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবসায়ীক কার্যক্রম।২০২১ সালের বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের নতুন নীতিমালায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানটি অভাবনীয় সমস্যায় পরে যায়।

আরো পড়ুনঃ মানি হাইস্ট সিজন ৫ দেখতে আইটি কোম্পানির ছুটির ঘোষণা! মুক্তি পাচ্ছে আজ।

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ফেসবুক বিবৃতি ইভ্যালির সিইও মোহাম্মদ রাসেল বলেন,

“স্বীকার করছি, বর্তমান কার্যক্রম সন্তোষজনক নয়। কিন্ত বিশ্বাস করুন,আমরা শুধুমাত্র আপনাদের সহযোগিতা পেলে এই ইকমার্স বিজনেস থেকেই ইভ্যালি ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। আমাদের এখানে হয়তো আপনার অর্ডার নাই। আমরা অনেকের ডেলিভারি দিতে পারছি না দেখে হয়তো আপনি নেতিবাচক মন্তব্য করছেন। আমাদের সকল ট্রাকজেকশন ব্যাংকিং চ্যানেলই করেছি। আমরা কোন অর্থনৈতিক দূর্নীতি করিনি। আমাদের ঘাটতি হয়েছে পণ্যে ডিসকাউন্ট দিয়ে ইকমার্স প্রতি মানুষকে আকর্ষণ তৈরি করার জন্য।”

20210901 120158 copy 700x500
ইভ্যালির সিইও মোহাম্মদ রাসেলের ফেসবুক বিবৃতি।

ব্যবসায়িক ভুল এবং পুরনো পণ্য ডেলিভারি বিষয়ে উল্লেখ করে তিনি বলেন,

“হয়তো আমাদের কোন ব্যবসায়িক ভূল থাকতে পারে। কিন্ত এই ব্যবসায়িক ভূল সঠিক ব্যবসায়িক পদ্ধতি দিয়ে আমরা সমাধান করব। আমি শুধুই ৬ মাস সময় চেয়েছি। আর বাকি ৫ মাস। হয়তো আপনার অর্ডারটি বিলম্বিত হচ্ছে। আমরা প্রতিদিন নতুন পুরাতন ডেলিভারি দিয়ে যাচ্ছি। আমি জানি এই দেশে বিশাল পরিসরে ই-কমার্স বিস্তার লাভ করবে। এই স্বপ্ন থেকেই আমার সমস্ত কার্যক্রম। আমি আছি, আমরা আছি।”

সবশেষে সকলের প্রতি সময় চেয়ে কিছুদিন নেতিবাচক মন্তব্য থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেন মোহাম্মদ রাসেল। ব্যর্থ হলেও থাকবেন ভবিষ্যতে এ প্রসঙ্গে বলেন,

“ব্যর্থ হলেও আমাকে পাবেন ভবিষ্যতে। কিন্ত কোন সুযোগ দেওয়ার আগে আমাদের ব্যর্থ বললে আমরা হয়তো বর্তমান গতি বাড়াতে পারব না। শুধুই একটা অনুরোধ, আপনি যদি ইভ্যালির নিকট কোন পণ্য বা টাকা পাওনা না থাকেন, তাহলে নেতিবাচক মন্তব্য এই কিছুদিন না করুন। বর্তমান বিজনেস দিয়ে যদি এই পেন্ডিং ডেলিভারি কমাতে পারি, অন্তত প্রতিদিন কিছু মানুষ তো পণ্য পাবেন। দিন শেষে কারো ভালো কামনা করা একটি মহৎগুন। এই ভালো কামনা ফলাফল পাবেন আমাদের কাস্টমার এবং আমাদের সেলার, যারা দুশ্চিন্তার মধ্যে সময় পার করছেন। দোয়া রাখবেন।”

আরো পড়ুনঃ ইভ্যালি নিয়ে দুদকের অনুসন্ধান, সকল চ্যালেঞ্জ এবং অগ্রগতির আপডেট দিতে লাইভে আসছেন ইভ্যালির সিইও

 

 

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন