অর্থ আত্মসাতের মামলায় ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া আজ সোমবার ই-অরেঞ্জের সাবেক মালিক সোনিয়া ও তার স্বামী মাশুকুর রহমান ও চিফ অপারেটিং অফিসার আমান উল্যাহকে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এর আগে গত বুধবার সন্ধ্যায় আমান উল্যাহকে গুলশান এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে ২৪টি ক্রেডিট কার্ড, ১৬ লাখ টাকা ও গাড়ি জব্দ করা হয়।

আরো পড়ুন: ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রাসেল ও চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও গ্রাহক হয়রানির অভিযোগে সিরাজগঞ্জে মামলা দায়ের!!

তার আগে, ১৭ আগস্ট,  ই-অরেঞ্জের প্রাক্তন মালিক সোনিয়া মেহজাবিন ও তার স্বামী মাসুকুর রহমানকে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন আদালত।  ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবুবক সিদ্দিকের আদালতে ই-অরেঞ্জের মালিক সোনিয়া মেহজাবিন ও তার স্বামী আজ (মঙ্গলবার, ১৭ই আগস্ট) আত্মসমর্পণ করে। এবং আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের জন্য আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের দু’জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

ই-অরেঞ্জের সাবেক মালিক সোনিয়া ও তার স্বামী মাশুকুর রহমান ৫ দিনের রিমান্ডে।

আরো পড়ুন: ই-অরেঞ্জের প্রাক্তন মালিক সোনিয়া এগারশো কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গ্রেফতার!! Eorange scam

আরো পড়ুন: Trending

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম গত বৃহস্পতিবার তিন আসামিকে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক আজ সোমবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেন। মামলার নথি থেকে জানা গেছে,

গত ১৭ আগস্ট গুলশান থানায় বাদী হয়ে মামলাটি করেন মো. তাহেরুল ইসলাম নামের এক গ্রাহক। তিনি ই-অরেঞ্জের প্রতারণার শিকার হয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

মামলার এজাহারে আরো বলা হয়েছে, “বাদী গত ২১ এপ্রিল পণ্য কেনার জন্য ই-অরেঞ্জে অগ্রিম টাকা দেন। তবে ই-অরেঞ্জ নির্ধারিত তারিখে পণ্য সরবরাহ করেনি। টাকাও ফেরত দেয়নি। নিজেদের ফেসবুক পেজে বার বার নোটিশ দিয়েছে। কিন্তু তারা পণ্য ও টাকা দেয়নি। সর্বশেষ বাদীকে গুলশান-১ এর ১৩৬/১৩৭ নম্বর রোডের ৫/এ নম্বর ভবনে অবস্থিত অফিস থেকে পণ্য ডেলিভারির কথা বললেও ই-অরেঞ্জ ডেলিভারি দেয়নি।”

এর আগে ই-অরেঞ্জের  বিরুদ্ধে সম্প্রতি একদল গ্রাহক তাদের টাকা নিয়ে সময়মত পণ্য সরবরাহ না করার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ করে। তাদের একটি দল মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার মিরপুরের বাসার সামনেও অবস্থান নেয়। পরে রাতে ই-অরেঞ্জের CEO মাশরাফিকে আশ্বাস দেন যে ই-অরেঞ্জ পণ্য ডিলিভারি শুরু করবে। মাশরাফি শেষ পর্যন্ত প্রতারণার শিকার গ্রাহকদের পাশে থাকবেন বলে জানান।

ই-অরেঞ্জ মালিক

এদিকে পণ্য না দেয়া বা অগ্রিম নেয়া অর্থ ফেরত না দেয়ায় ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে এগারশো কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা এক মামলায় প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন মালিক সোনিয়া মেহজাবিন ও তার স্বামী মাসুকুর রহমান আন্তসমর্পণ করেন। তাদের পক্ষের আইনজীবী মামুনুর রশীদ বলেন মামলায় সোনিয়া মেহজাবিন ও মাসুকুর রহমানসহ ছয় জনকে আসামী করা হয়েছে।

আরো পড়ুন: রাশিয়ানদের সাগর গায়েব করার ইতিহাস।
আরো পড়ুন: সাড়া ফেলতে ব্যর্থ সৃজিতের “রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি”। Srijit’s REKKA failed as Web series.

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন