বহুমুখী উদ্বেগকে উড়িয়ে দিয়ে সরকার গঠনে নারীদের অংশগ্রহণ চায় তালেবান

তালেবানের পক্ষ থেকে জানানো হয় শরিয়া আইন অনুযায়ী শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে অংশগ্রহণসহ নারীদের সব ধরনের অধিকার রক্ষায় তালেবান বদ্ধ পরিকর।তাঁরা চায় তাঁদের সরকারে নারীরাও অংশগ্রহণ করুন। বার্তা সংস্থা এপি ও আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আফগানিস্তানে নতুন সরকার গঠন করতে যাচ্ছে তালেবান। গত রোববার (১৫ আগস্ট) রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর পুরো আফগানিস্তানই এখন তালেবানের নিয়ন্ত্রণে। এখন শুধু তালেবানের নতুন সরকার গঠনের অপেক্ষা।

তালেবানের আফগান নিয়ন্ত্রণের পর থেকেই আন্তর্জাতিক এবং দেশীয় নানা মহলের আলোচনার কেন্দ্রে প্রশাসনিক ও রাস্ট্রীয় কাজে নারীদের অংশগ্রহণ এবং অধিকারে তালেবান কেমন পদক্ষেপ নেয় সেটি নিয়ে।

20210817 182046
তালেবানের আফগান দখলের পর মালালার টুইট বার্তা।

তালেবানের দ্বারা সাম্প্রতিক সময়ে নারী সহিংসতা কিংবা নারী অধিকার হরণের জোড়ালো নজির না থাকলেও উদ্বেগ জানাচ্ছেন আন্তর্জাতিক কিছু মহল।তালেবানদের আফগান দখলের পরই টুইট বার্তায় পাকিস্তানের নোবেল বিজয়ী মালালা ইউসুফজাই জানিয়েছিলেন, “আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। বিশেষ করে সেখান নারী ও কিশোরী মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন।”

আজ মার্কিন প্রসিডেন্টের এর উদ্দেশ্যে মালালা বলেন, “মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আরো সাহসী হতে পারেন। আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষের কথা ভেবে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। আফগানিস্তানের অসহায় মানুষ বিশ্বের দিকে তাকিয়ে আছে। “

তাছাড়া আফগানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে নিজের ভয়ের কথা জানিয়েছেন দেশের নারী সাংসদ ফারজানা কোচাই।

এসকল উদ্বেগ উড়িয়ে দিয়ে তালেবানের সাংস্কৃতিক কমিশনের সদস্য এনামুল্লাহ সামানগানি বলেন, ইসলামিক আমিরাত চায় না যে, নারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হোক। তালেবান সরকারে অংশগ্রহণের জন্য তাঁরা নারীদের আহ্বান জানাচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, “শরিয়া আইন অনুযায়ী, সরকারি কাঠামোতে তাঁদের অংশগ্রহণ থাকা উচিত।”

20210817 232712 copy 500x300
সংবাদ সম্মেলনে তালেবান মুখমাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ।

তালেবান মুখমাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, “আমরা নারীদের বাইরে কাজ করার এবং পড়াশোনা করার অনুমতি দেব , তবে সেটা হতে হবে আমাদের কাঠামোর মধ্যে। শরীয়া আইনের অধীনে নারীর অধিকার রক্ষায় আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

তালেবানের নতুন সরকার গঠনের বিষয়ে স্পষ্ট কোনো তথ্য তিনি দেননি। অতীত অভিজ্ঞতা অনুযায়ী, পুরোপুরি ইসলামিক শাসন অনুযায়ী তারা সরকার গঠন এবং দেশ পরিচালনা করবে। সব পক্ষকেই এতে অংশ নিতে হবে।

 

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন