আসছে ফেসবুকের বিকল্প ‘যোগাযোগ’; হোয়াটস অ্যাপের বিকল্প ‘আলাপন’

বর্তমান পৃথিবীতে যোগাযোগের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া। মানুষ তার প্রতিটি কর্মের একটি প্রতিফলন তুলে ধরে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে এই সোশ্যাল মিডিয়া এখন শুধুমাত্র ব্যক্তিগত পর্যায়ে পর্যায়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়; বরং এটি এখন মানুষের চাকরি- বাকরি, অনলাইন মার্কেটিং, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা ও চিকিৎসা সহ প্রতিটি ক্ষেত্রে এই সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার হচ্ছে।

এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন উন্নত দেশ পৃথিবীর অনুন্নত কিংবা উন্নয়নশীল দেশগুলোকে প্রতিনিয়ত নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে। সেই নিয়ন্ত্রণের জাল থেকে কিছুটা বেড়িয়ে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য বর্তমানে বাংলাদেশে আসছে ফেসবুকের বিকল্প হিসেবে আসছে ‘যোগাযোগ’, হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প হিসেবে ‘আলাপন’।

সম্প্রতি আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক একটি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকাকালীন সময়ে তাঁর বক্তৃতায় বলেন, “দেশকে আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে আইসিটি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই অনলাইন মিটিং আ্যপ জুম এর বিকল্প হিসেবে ‘বৈঠক’ এবং করনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ অ্যাপস তৈরি করা হয়েছে। নিজস্ব যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে ওয়াটস আ্যপের বিকল্প হিসেবে ‘আলাপন’ নামেরও একটি প্লাটফর্ম তৈরি করা হচ্ছে।”

এর মাধ্যমে) দেশের বিভিন্ন স্থানের বাছাইকৃত বিভিন্ন সংবাদ জানা যাবে। মার্কেটিং এর জন্য বিভিন্ন গ্রুপ বা মার্কেটিং প্লেস তৈরি করা যাবে।

এছাড়াও জুনায়েদ আহমেদ পলক আরো বলেন, “এখন  ইউটিউব বা যে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম গুলো আছে সেখানে ব্যাপকভাবে বিজ্ঞাপন দেন বিভিন্ন উদ্যোক্তারা। এর ফলে হাজার হাজার কোটি টাকা দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে কিন্তু সরকারের কোন রাজস্ব আয় হচ্ছে না। সেজন্য বিকল্প একটি স্ট্রিমিং প্লাটফর্মে তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।”

সর্বোপরি দেশের আইসিটি খাতকে আরো এগিয়ে নেয়ার জন্য এবং উন্নত বিশ্বের সাথে প্রতিযোগীতায় নিজেকে টিকিয়ে রাখার জন্য এই উদ্যোগগুলো নেয়া হচ্ছে।

পাঠক, আপনি কি মনে করেন এই উদ্যোগগুলো বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ আইসিটি খাতকে আরো সমৃদ্ধ করবে?

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন