কত টাকায় বিক্রি হলো কুষ্টিয়ার খাজাবাবা (মনু)?

গাবতলী গরুর হাটে এবার বড় গরুগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি নজর কেড়েছে কুষ্টিয়ার রিনা আপার খাজাবাবা (মনু)।

ঐতিহ্যবাহী গাবতলী গরুর হাটে ৬ দিন আগে ভালো দামের আশায় কুষ্টিয়ার হালশা ভেদামারি থেকে এ গরুটি নিয়ে আসেন তিনি। তাঁর স্বপ্ন হলো এই গরু ভালো দামে বিক্রি করতে পারলে কুষ্টিয়ায় নিজের একটি ফার্ম গড়ে তুলবেন।সেইসাথে খামারের মল দ্বারা জৈব সার তৈরিরও পরিকল্পনা তাঁর।

সেই লক্ষ্যে প্রথমে ২০ লক্ষ টাকা দাম চান তিনি।তুলনামূলকভাবে মাংসের হিসেবে ছোট গরুর চেয়ে বড় গরুর দাম এবার কম। ক্রেতারা এতে খুশি হলেও, মলিন মুখ বিক্রেতাদের। যার ফলে শুরু থেকেই দাম ছাড়তে হয়েছে রিনা আপাকে।

গতকাল কোনো উপায় না দেখে খাজাবাবাকে ৯ লক্ষ টাকায় বিক্রির ঘোষণা দিয়েছিলেন রিনা আপা।একই সাথে নারী হিসেবে নারীর কষ্টে পাশে থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন।

সর্বশেষ তিনি খাজাবাবাকে বিক্রি করতে সক্ষম হোন। গরুটি শেষ পর্যন্ত ৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন রিনা আপা।শেষে দেশ বিদেশের শুভাকাঙ্ক্ষীদের ধন্যবাদ জানিয়ে রিনা আপা বলেন,” আমি চাই না কাউকে কষ্ট দিতে।দেশ বিদেশ থেকে অনেকেই আমাকে ফোন করে দোয়া করেছে।এর চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর কী হতে পারে?দাম যাই হোক না কেন আমি আমার গরু বিক্রি করে সন্তুষ্ট আছি।আপনারাও সন্তুষ্ট হয়ে যান।আপনারা যে দোয়া আমার জন্য করেছেন তা কোটি টাকা দিয়েও পাওয়া  যাবে না”।

 

আপনার মন্তব্য জানাবেন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন